বাড়িতেই করুন রুপচর্চা, কিচেনই আপনার বিউটি পার্লার !

জন্মদিন থেকে বিয়ে বা  কলেজের ফাংশন থেকে অফিসের পার্টি যেখানেই যান না কেন নিজেকে সুন্দরভাবে উপস্থাপন করতে না পারলে আকৃষ্ট করতে পারবেন না কাউকেই । একজন মানুষ আপনার কথা তখনই শুনবে যখন আপনি তার দৃষ্টি আকর্ষণ করতে পারবেন । খসখসে বা ফ্যাকাশে ত্বক অন্যদের মনোযোগ পেতে ব্যাঘাত করে । তাই ত্বকের ঔজ্জ্বল্য ফুটিয়ে তুলতে বিউটি পার্লারে যাওয়া ছাড়া উপায় নেই । কিন্তু সময় এবং টাকা নষ্ট করে নিয়মিত ফেসিয়াল করানো একটা ঝামেলাই বটে । আজকাল প্রসাধনীর দাম শুনলে ফেসিয়ালের চিন্তা মাথা থেকে ঝেড়ে ফেলতে হয় । কিন্তু আপনি চাইলে প্রথম দুয়েকবার ফেসিয়াল করে এরপর বাসাতেই ত্বকের যত্ন নিতে পারেন । সুবিধা হলো এতে সময় এবং খরচ বেঁচে যাওয়ার পাশাপাশি বিপজ্জনক রাসায়নিক উপাদানে তৈরি কসমেটিকসগুলোর পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া থেকে মুক্ত থাকতে পারবেন । কারণ আপনার রুপচর্চার প্রসেসটা হবে সম্পূর্ণ ন্যাচারাল । চলুন জেনে নেওয়া যাক কিভাবে তিনটি ফেসপ্যাক বানিয়ে নিজের বাসায় রুপর্চা করতে পারবেন:-

বাড়িতেই-করুন-রুপচর্চা,-কিচেনই-আপনার-বিউটি-পার্লার

তিলে দাগ দূর করতে যা করবেনঃ

অনেকের মুখেই ছোট ছোট ছোপ ছোপ তিলের দাগ দেখা যায় । সঠিক সময়ে পরিচর্যা না করলে এই দাগ আস্তে আস্তে বাড়তে থাকে । আপনি চাইলে আটা ও কাঁচা হলুদ ব্যবহার করে এই দাগগুলো কমিয়ে আনতে পারেন । আটা সব ধরনের ত্বকের জন্যই ভালো কাজ করে ।

উপকরণঃ আটা, কাঁচা হলুদ, দুধের সর

প্রক্রিয়াঃ

১। আটা ফুটিয়ে পেস্টের মত করতে হবে

২। আলতোভাবে মুখমন্ডলে লাগাতে হবে

৩। পানি দিয়ে পেস্ট করে সাবানের মত মুখ ধুয়ে ফেলতে হবে

৪। দুধের সরের সাথে আটা ও কাঁচা হলুদ মিশিয়ে মেখে ১৫ মিনিট পর ধুয়ে ফেলতে হবে ।

নিয়মিতভাবে করলে কয়েকদিনের মধ্যেই তিলের দাগগুলো হালকা হয়ে যাবে ।

ফ্যাকাশে ভাব দূর করতে যা করবেনঃ

অনেকসময় বিশেষ করে শীতে মুখ ফ্যাকাসে ও খসখসে হয়ে যাওয়া খুব বিরক্তির উদ্রেক করে । ক্রিম বা লোশন লাগালেও কিছুক্ষণ পর সেগুলো চলে যায় এবং মুখে ডার্ক শ্যাডো পড়ে । অাপনি চাইলে কিছুটা কাঁচা হলুদের সাহায্যে ত্বকের এই ফ্যাকাশে ভাব দূর করে ফর্সা ও সোণালী আভাময় ত্বক পেতে পারেন । কিভাবে সেটাই বলব এবার !

 

উপকরণঃ

কাঁচা হলুদ, অলিভ অয়েল

প্রক্রিয়াঃ

অলিভ অয়েলের সাথে কাঁচা হলুদ মেখে গোসল করতে হবে । এর সাথে দুধের সর মিশিয়ে নিতে পারেন ।

এর আরও একটি উপকারিতা আছে । কাঁচা হলুদ শরীরের অপ্রয়োজনীয় লোমের বৃদ্ধি রোধ করে । এটি মাখলে হাত বা পায়ের ওয়াক্সিংয়ে সহায়তা করবে । সবধরণের ফেসপ্যাক তৈরির মূল উপাদান এই কাঁচা হলুদ । প্রাচীন যুগ থেকেই প্রসাধণী ও চিকিৎসাক্ষেত্রে কাঁচা হলুদ ব্যবহৃত হয়ে আসছে । কিছুটা আখের গুড়ের সাথে অল্প পরিমাণ কাঁচা হলুদ খেলে রক্ত পরিশোধিত হয় ।

স্কিন-ফ্রেশনার টনিক বানাতে যা করবেন:

ঠোঁট ফেটে যাওয়া বা মুখ খসখসে হেওয়া থেকে রক্ষা পেতে আপনি স্কিন-ফ্রেশনার টনিক বানাতে পারেন । এর সবগুলো উপকরণই সহজলভ্য ।

উপকরণঃ গোলাপ জল, লেবুর রস, মধু, গ্লিসারিন

প্রক্রিয়াঃ

১। ঠোঁট ফাটা দূর করতে গ্লিসারিনের সাথে সমপরিমাণ গোলাপ জল মিশিয়ে ঠোঁটে মাখতে হবে ।

২। খসখসে চামড়া দূর করতে রাতে মুখ ধুয়ে টনিক লাগাতে হবে । টনিক বানাতে আধা কাপ গোলাপ জলে একটি লেবুর রস ও মধু মিশাবেন । এটি তুলারে সাহায্যে দিসে দুবার মুখে লাগাবেন । ভোরে হালকা গরম পানিতে মুখ ধুয়ে নিবেন ।

এই প্রক্রিয়াতে আপনার ঠোঁটের রং সুন্দর হবে এবং ত্বকে কোমলতা আসবে । যারা অাগে কখনো বাড়িতে ফেসপ্যাক করেননি তারা উপরের তিনটি পদ্ধতি ফলো করে দেখতে পারেন । আশা করি কাজে লাগবে !

আপনার সৌন্দর্যে আদার উপকারিতা

আপনি জানেন সুন্দরী মেয়েরা কেমন বন্ধু খুঁজে ।।

রূপচর্চায় তিন প্রাকৃতিক উপাদান

স্থায়ীভাবে ফর্সা হওয়ার সহজ দুটি উপায় ।।

এই সংক্রান্ত আরও খবর...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *